মুগ্ধবাংলার ক্রেডিট যুগ শেষ হচ্ছে
banglamax, নিয়মিত Member
২০১৯ সালের ১লা এপ্রিল থেকে যাত্রা শুরু করে,আজ মুগ্ধবাংলা ২০২২ সালের অক্টোবরে প্রায় সাড়ে তিন বছরে পড়ল। কপালে থাকলে মুগ্ধবাংলা আরও কয়েকবছর হয়ত চলবে। তবে মনে হয় সে চলাটি অনেকেরই চোখে কাঁকরের মত অনুভূতির সৃষ্টি করছে, তাতে সন্দেহ নেই। এডমিন হিসাবে মুগ্ধবাংলাকে যতটা সম্ভব সিকিওর করার যথাযোগ্য চেষ্টা করেছি, স্বেচ্ছাচারের মত একাধিকবার নিয়মাবলী পাল্টেছি। বইচুরি ঠেকাতে ক্রেডিট সিস্টেম, লগিন বোনাস প্রভৃতি পদ্ধতি এনেছি, এমনকি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ভেরিফিকেশনও। কিন্তু, বাঙালীর বুদ্ধি বোধহয় জগতসেরা, আর তাই বইচুরি ঠেকানোর যতই ব্যবস্থা করি না কেন, সে চুরি হয়েই যায়, তাকে ঠেকানোর সাধ্য কি আমার মত আনাড়ির! ক্রেডিট সিস্টেমও সেখানে ফেল! আর তাই আজ বাধ্য হয়ে বেশ কিছু ডিসিশান আমাকে নিতে হচ্ছে।

১। মুগ্ধবাংলাকে আরও কয়েক বছর আমি চালাবো, শত চেষ্টা করে হলেও। প্রতিবছর শারদীয়া ও নববর্ষ সংখ্যা বের করব, ছোট করে হলেও। সম্মানিত সদস্যরা যদি অংশগ্রহণ করতে চান, তাদেরও সাদর আমন্ত্রণ রইল।

২। মুগ্ধবাংলায় আজ থেকে সকল প্রকার অ্যাড ডিঅ্যাকটিভেট করা হল। এর কারণে আগামীতে আর কেউ লগিন করলে অ্যাড দেখতে পাবেন না, তবে, গেস্ট ইউজার অর্থাৎ লগিন করার আগে বা লগ আউট করার পরে দু-একটা অ্যাড হয়ত আপনারা দেখতে পাবেন, তবে লগিন করলে কোনো রকম ভাবেই আর অ্যাড ডিসপ্লে হবে না। এর ফলে অ্যাড ভিউএর কারণে যে ক্রেডিট আমরা দিচ্ছিলাম (প্রতি ৫টি অ্যাডের জন্য ১ ক্রেডিট), সেটি আর কাউকে দেওয়া হবে না।

৩। মুগ্ধবাংলায় প্রতিদিন যে লগিন ক্রেডিট দেওয়া হচ্ছিল (২৪ঘন্টায় প্রথমবারের জন্য ৫ ক্রেডিট, দিনের প্রথমবার হিসাবে ৩ক্রেডিট), তা এখন থেকে বন্ধ করা হল।

৪। আপনার অ্যাকাউন্টে যে ক্রেডিট রয়েছে, আপনি খরচ করুন বা না করুন, আগামী ৩১লা মার্চ ২০২৪ তারিখে তা ভ্যানিশ হয়ে যাবে বা বলা যেতে পারে তার কোনো ভ্যালু আমাদের মুগ্ধবাংলা সাইটে রইবে না। তবে শুধুমাত্র যারা পেমেন্ট করে ক্রেডিট ক্রয় করেছেন, তাদের ক্রেডিটই থাকবে, তাও (সকল ডাউনলোডের জন্য ব্যবহৃত ক্রেডিট - ক্রয়করা ক্রেডিট) এই হিসাবের পর যদি অবশিষ্ট ক্রেডিট থাকে তবেই; এই হিসাবে লগিন ক্রেডিট ও অ্যাড ক্রেডিট ধরা হবে না।

এবার আসি আসল কথায়। হয়ত আপনাদের মনে হতে পারে, আমি এডমিন, স্বেচ্ছাচার করতেই পারি, কিন্তু তাই বলে বারবার আমি যে বলেছিলাম, মুগ্ধবাংলার প্রতিটি সদস্যের অ্যাকাউন্টের ক্রেডিট আমার তাদের কাছের ঋণ, সেই কথার কী হল। হ্যাঁ, বন্ধুরা, আমাকে আমার কথার খেলাপ করতেই হচ্ছে, আর করতে হচ্ছে বহু দুঃখ ও মনোঃকষ্ট বুকের মধ্যে চেপে রেখে। কারণ আগেরবার যখন বইচুরি ঠেকাতে সদস্য ব্যান করার পদক্ষেপ নিয়েছিলাম, তার পর থেকে মুগ্ধবাংলার এক বা একাধিক সদস্য একা বা দল বেঁধে মুগ্ধবাংলার ক্রেডিট সিস্টেমটিকে অপব্যবহার করার জন্য আটঘাট বেঁধে নেমে পড়েছিল। একাধিক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সহ বিভিন্ন চৌর্যবৃত্তির অ্যাপের মাধ্যমে অ্যাকাউণ্ট খুলে মুগ্ধবাংলাকে ঘুণপোকার মত খেয়ে ফেলতে লেগেছে। কয়েকদিন আগে একজন (নাম বলব না) মেল করে আমাকে আমার ও শরদিন্দুর অনুবাদ করা কয়েকটি বইএর প্রচ্ছদের নমুনা পাঠায় লিঙ্কসহ। পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে, মুগ্ধবাংলার "অরিজিনাল রিলিজ" লোগো তুলে ফেলে নিজের সাইটের ছাপ্পা মেরে দেদার শেয়ার করেছে সেই বইগুলি। আর মজার ব্যাপার কি জানেন, এর আগে যখন ৫০০র বেশী ক্রেডিট যাদের অ্যাকাউন্টে আছে, তাদের দৈনিক বোনাস দেব না এই মর্মে একটি পোস্ট দিয়েছিলাম, (দৈনিক লগিন বোনাস সংক্রান্ত ঘোষণা -১৪ই মে,২০২২) তখন থেকে তারা মুগ্ধবাংলায় প্রকাশিত পরবর্তী কমিকসগুলি শেয়ার করা বন্ধ করে দেয়। অর্থাৎ, তারা সাবধান হয়ে যায়। এ থেকেই প্রমানিত হয়, তারা আর সদস্যপদ হারানোর মত ভুল করতে চায় না মোটেই, আর এরকম চুরি থেকেও তারা পিছপা হবে না! আপনারা অনেকে হয়ত কমেন্ট করে বলবেন চোর ধরে, তাদের ব্যান করতে, কিন্তু ওদের ধরে কী লাভ বা ব্যান করে কী লাভ? আপনাদের অনেকেই যে ওদের সঙ্গ দিয়েছেন, তার প্রমাণ আমার ওই পোস্টে, যেখানে আমি আমার দৃষ্টিভঙ্গীতে ব্যাখ্যা করেছি, কেন ক্রেডিট থাকা সত্ত্বেও অনেকের ডাউনলোডে কোনো আগ্রহ নেই।

যাই হোক, ওদের নিয়ে আমার আর মাথা ব্যাথা বাড়িয়ে লাভ নেই, বরং আমার ভবিষ্যত পরিকল্পনা তাদের জানিয়ে দিই---
* মুগ্ধবাংলা যেমন চলছিল তেমনই চলবে, যেমন নতুন নতুন বই অনুবাদ নিয়ে হাজির হচ্ছিল তেমনই হাজির হবে, কাউকে ব্যান বা চোর বানানোর রাস্তায় যাবে না। তবে যদি মনে হয়, কাউকে ব্যান করা একান্তই দরকার, কোনো ওয়ার্নিং ছাড়াই ব্যান করে দেবো, দ্বিতীয় কোনো সুযোগ বা অজুহাত দর্শানোর সুযোগ কাউকে দেবো না।
**আগামী কয়েকমাস ধরে মুগ্ধবাংলার সফটওয়ার আপডেট করা হবে, সে কারণে সাইটে হয়ত মাঝে মাঝে এরর পেজ দেখাতে পারে, বা, লাগাতার দিন কয়েকের জন্য বন্ধও হয়ে থাকতে পারে। তাই সকলকে অনুরোধ, যদি কোনো বই আপনার ডাউনলোড করার ইচ্ছে থেকে থাকে, তবে অতিশীঘ্র তা ডাউনলোড করে নিন।

আর একটি অনুরোধ, ক্রেডিট সিস্টেম তুলে দেবার পর, নতুন কোন সিস্টেমে মুগ্ধবাংলা আসবে, তা এখনও ভেবে উঠতে পারিনি। কারণ শুধুমাত্র পেইড মেম্বার নিয়ে চলতে গেলে, বাংলাদেশের প্রচুর সদস্য হারাবো। আবার আবার ওদের ধরে রাখার জন্য ফ্রি লগিন বোনাস বা ইউজার এড সাপোর্ট সিস্টেম রাখলে, বইচোরেদের হুড়োহুড়ি লেগে যাবে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট বানানোর জন্য। তাই মধ্যবর্তী কোনো পন্থা বের করে উঠতে পারিনি এখনও। আপনারা ইচ্ছে হলে সাজেশন দিতে পারেন।

আজ অনেকদিন পর, আপনাদের বিমর্ষ করে, যার পর নাই খুবই বিব্রত হলাম।

13th October, 2022 8:01 AM
check_circle Comments
palas datta
নিয়মিত Member
 #1
যত যাই হোক সাইট বন্ধ করবেন না . আমার মতো অনেকে আছে যারা হয়তো আপলোড করে আপনাদের সহায়তা করতে পারে না বা ফ্রি সিস্টেম ব্যবহার করে কমিক্স পড়ি, তারা কিন্তু আপনাদের এই অমানুষিক পরিশ্রম টাকে শ্রদ্ধা করি আর এটাও গ্যারান্টি দিতে পারি যে আমাদের মতো পাঠক রা কখনোই বিস্বাসঘাতকতা করবে না

14th October, 2022 1:26 PM
palas datta
নিয়মিত Member
 #2
একটা suggestion দিতে পারি, যেটা banglapdf.net এ আছে. লগ ইন সিস্টেম ক্রেডিট থাকুক, কিন্তু বই দেবেন on request এ . তাহলে আপনি অনেক ভালোভাবে স্ক্রুটিনি করতে পারবেন .

14th October, 2022 1:31 PM
banglamax
নিয়মিত Member
 #3
on request সিস্টেম এর বিষয়টা আমার মাথায় আসেনি, ঠিক আছে, বিষয়টা নিয়ে ভাবনা চিন্তা করছি। On request সিস্টেমে আর কার কার আগ্রহ আছে, এখানে মন্তব্য করে জানাতে পারেন।

14th October, 2022 4:26 PM
Pallab
নবাগত Member
 #4
আমারও মনে হয় on request system খুব ভালো হবে। এতে এডমিনদের নজরেও ডাউনলোডার থাকবে।

14th October, 2022 10:49 AM
ali42o
নবাগত Member
 #5
On request সিস্টেম একটি ভালো আইডিয়া। এতে চোরদের সহজে চিহ্নিত করতে পারবেন।

15th October, 2022 8:42 AM
Pages First 1  2   3   Next   Last 

Powered by Blogerythm Version 3.1
যাত্রা শুরু পয়লা এপ্রিল ২০১৯ © মুগ্ধবাংলা